বিএমডিসি’র গাফিলতির জন্যই ওয়েবসাইট তালিকায় নেই ডিপ্লোমা চিকিৎসকরা

Mijanur Mijanur

Rahman

প্রকাশিত: ১২:১০ পূর্বাহ্ণ, মার্চ ৮, ২০২০

মেডিনিউজ রিপোর্ট :

প্রায় ৭ বছর পূর্বে ভুয়া চিকিৎসকদের তৎপরতা বন্ধ করা এবং চিকিৎসা সেবা ব্যবস্থাকে ডিজিটালাইজড্ করার জন্য স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নির্দেশনা মোতাবেক বাংলাদেশ মেডিকেল এন্ড ডেন্টাল কাউন্সিল বিএম&ডিসি কর্তৃপক্ষ চিকিৎসক ও দন্ত চিকিৎসকদের সনাক্তকরণের জন্য ডিজিটালাইজড্ অনলাইন ওয়েবসাইট (http://bmdc.org.bd/doctors-info) তৈরি করেছেন।
উক্ত সনাক্তকরণ অনলাইন ওয়েবসাইটে নিবন্ধিত চিকিৎসক ও দন্ত চিকিৎসকের নিবন্ধন নাম্বার দিয়ে সার্চ করে চিকিৎসক ও দন্ত চিকিৎসক সঠিক কিনা তা যে কেউ জেনে নিতে পারেন। ডিজিটালাইজড্ ওয়েবসাইট সনাক্তকরণে ৯৮৫০০ হাজার চিকিৎসক ও ১০ হাজার দন্ত চিকিৎসকের ছবি, নাম, ঠিকানা ও রেজিস্ট্রেশন নাম্বার কয়েক বছর ধরে ধাপে ধাপে প্রকাশ করা হয়েছে। তবে অভিযোগ উঠেছে বিএম&ডিসি কর্তৃপক্ষের বিরুদ্ধে উক্ত অনলাইন ওয়েবসাইট তালিকায় বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদ অধিভূক্ত ও বিএম&ডিসি নিবন্ধিত প্রায় ২০ হাজার ডিপ্লোমা ইন মেডিকেল ফ্যাকাল্টি ‘ডিএমএফ’ ডিপ্লোমা ডিগ্রিধারী ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের অন্তর্ভুক্ত করা হয় নি। যে কারণে ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের বিএম&ডিসি নিবন্ধন নাম্বার থাকা সত্ত্বেও ভ্রাম্যমাণ আদালত কর্তৃক ভুল বোঝাবুঝির কারণে অনেকের জেল ও জরিমানা ভোগ করতে হচ্ছে। এসকল জেল-জরিমানা থেকে রেহাই পেতে ইতিমধ্যে কয়েকজন ডিপ্লোমাধারী চিকিৎসক জেলা ম্যাজিস্ট্রেট আদালত ও জেলা ও দায়রা জজ আদলতের শরণাপন্ন পর্যন্ত হয়েছেন।

এদিকে ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের সিনিয়র নেতৃবৃন্দ মেডিনিউজ প্রতিনিধিকে জানান, ‘বিএম&ডিসি কর্তৃপক্ষের গাফিলতির জন্যই অনলাইন ওয়েবসাইট তালিকায় নাম নেই ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের! কর্তৃপক্ষের চরম গাফিলতির জন্যই অনলাইন ওয়েবসাইট তালিকায় সুদীর্ঘ ৭ বছরেও ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের নামের তালিকা অন্তর্ভুক্তি করা সম্ভব হয় নি। কবে নাগাদ অন্তর্ভুক্তি হবে তারও কোন হদিস নেই!’

ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের সিনিয়র নেতৃবৃন্দগণ আরো অভিযোগ করেন বলেন, ‘২০১৪ সালে অনলাইন ওয়েবসাইট তালিকা তৈরির পর থেকেই আমরা বিএম&ডিসি কর্তৃপক্ষকে বলে আসছি চিকিৎসক ও দন্ত চিকিৎসকদের সাথে সাথে ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের নামের তালিকাও যেন অনলাইন ওয়েবসাইট তালিকায় দেয়া হয়। যাতে করে সারাদেশের নিবন্ধনহীন ভুয়া ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের তৎপরতা বন্ধ করা সম্ভব হয়। দেশের প্রান্তিক পর্যায়ে ভুয়া ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের দৌরাত্ম্য দিন দিন বেড়েই চলছে। এতে করে আবহমান গ্রাম বাংলার প্রান্তিক পর্যায়ে বসবাসরত মানুষ স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে পড়ে যাচ্ছে। এজন্য ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের জাতীয় সংগঠন বাংলাদেশ ডিপ্লোমা মেডিকেল এসোসিয়েশন বিডিএমএ’র পক্ষ থেকে বেশ কয়েকবার লিখিত আবেদন করা সত্ত্বেও বিএম&ডিসি কর্তৃপক্ষ তাতে সাড়া দিচ্ছেন না! এজন্য আমরা বিএমডিসি’র রেজিস্ট্রার ও সভাপতিকে দায়ী করছি ও তাদের প্রত্যাহারের আবেদন জানাচ্ছি।’

জানা যায়, সারাদেশব্যাপী ভুয়া চিকিৎসক ও ভুয়া দন্ত চিকিৎসকদের তৎপরতা বন্ধ করার জন্য ভ্রাম্যমাণ আদালতের মাধ্যমে ঝটিকা অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। এক এক করে ভুয়া চিকিৎসক ধরে বিএমডিসি’র ওয়েবসাইটের অনলাইন তালিকায় সার্চ করে খোঁজে দেখা হচ্ছে। যে সকল ভুয়া চিকিৎসকের নাম তালিকায় পাওয়া যাচ্ছে না, তাদের তৎক্ষনাৎ জেল ও জরিমানা করে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হচ্ছে।

এমতাবস্থায়, বিএম&ডিসি নিবন্ধিত সকল ডিপ্লোমা চিকিৎসকদের ছবি, নাম, ঠিকানা ও রেজিস্ট্রেশন নাম্বার তৈরি কৃত ডিজিটালাইজড্ সনাক্তকরণ অনলাইন ওয়েবসাইট তালিকায় অতিশীঘ্রই দেয়ার জন্য সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙ্গালি সন্তান জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কন্যা মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, স্বাস্থ্য মন্ত্রী ও স্বাস্থ্য সচিব সহ সংশ্লিষ্ট সকলের কাছে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের জন্য ডিপ্লোমা চিকিৎসকগণ আকুল আবেদন জানিয়েছেন।

আপনার মতামত দিন :