আনোয়ার খান মেডিকেলের আইসিইউ’র পুরো টিম কোয়ারেন্টাইনে!

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:৪৯ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৪, ২০২০

প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালের চিকিৎসক, নার্স এবং ওয়ার্ড কর্মীসহ নিবিড় পরিচর্যা ইউনিটের (আইসিইউ) পুরো টিমকে কোয়ারেন্টাইনে পাঠানো হয়েছে।

মঙ্গলবার (২৪ মার্চ) এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাসপাতাল প্রশাসন। একইসঙ্গে এ আইসিইউ ইউনিটও বন্ধ করে দিয়েছে কর্তৃপক্ষ।

জানা গেছে, গতকাল এ হাসপাতালের আইসিইউতে করোনভাইরাস আক্রান্ত সন্দেহে এক বয়স্ক রোগীর মৃত্যুর হয়। পরে আইইডিসিআরে রোগীর নমুনা পরীক্ষা পজেটিভ আসার পরই হাসপাতালের আইসিইউ টিমের সমস্ত কর্মীদের কোয়ারান্টিনে যাওয়ার নির্দেশ দেয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন, গতকাল করোনভাইরাস আক্রান্ত এক রোগীকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার পর তার ফলাফল পজেটিভ এসেছিল এবং পরে সে মারাও যায়। এর পরেই কর্তৃপক্ষ এলাকাটি পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করার জন্য হাসপাতালের উদ্যোগে আইসিইউ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

এ প্রসঙ্গে হাসপাতালের পরিচালক ডা. জসীম উদ্দিন খানের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, এ বিষয়টা নিয়ে আমার কাছে কোন তথ্য নেই। কাল আপনাদেরকে বিস্তারিত জানানো যাবে। পরে ‘আমি এখন বাহিরে’ বলে তিনি ফোন কেটে দেন।

আনোয়ার খান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সহকারী পরিচালক ডা. ফখরুল আহসান বলেন, ‘পুরোপুরি পরিষ্কার ও জীবাণুমুক্ত করার জন্য আইসিইউ বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।’ আইসিইউ টিম কোয়ারেন্টাইনে থাকার ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘চিকিৎসকরা সাধারণত অনেক ক্ষেত্রে পৃথক অবস্থায় থাকেন।’

তবে আইসিইউ ওয়ার্ডের একাধিক কর্মী জানিয়েছেন, সোমবার হাসপাতালে কর্নাভাইরাস থেকে প্রবীণ রোগীর মৃত্যু হয়। পরে আমাদের সকলকেই বাড়িতে কোয়ারেন্টাইনে যেতে বলা হয়েছে।

এর আগে, আইইডিসিআর পরিচালক অধ্যাপক ডা. মীরজাদি সাব্রিনা ফ্লোরা বলেছেন, “একটি বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক বয়স্ক রোগী সোমবার করোনভাইরাস থেকে মারা গেছেন।”

এর আগে ২১ মার্চ রাজধানীর ডেল্টা মেডিকেল কলেজ ও হাসপাতালে করোনা আক্রান্ত রোগীকে চিকিৎসা দেয়ার পর একজন ডাক্তারেরও করোনা ভাইরাস পজেটিভ আসে। সে ঘটনায় তখন সে হাসপাতালের চারজন চিকিৎসক, ১২ জন নার্স এবং তিনজন সহকারীকে হাসপাতালে কোয়ারান্টিনে প্রেরণ করা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে দেশে এ পর্যন্ত সরকারি হিসাবে ৪ জনের মৃত্যু হয়েছে। একইসঙ্গে নতুন আক্রান্তসহ মোট আক্রান্ত হয়েছে ৩৯ জন। এছাড়াও বিশ্বব্যাপী করোনায় আক্রান্ত হয়ে প্রাণ হারিয়েছেন ১৬ হাজার ৫৭৪ জন। ৩ লাখ ৮২ হাজার ১০৮ জনের শরীরে করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়েছে এবং আক্রান্তদের মধ্যে সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন ১ লাখ ২ হাজার ৬৯ জন।

আপনার মতামত দিন :