চিকিৎসা সেবা বিভাগের বিতর্কিত সেই প্রজ্ঞাপন বাতিল

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৫৮ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৬, ২০২০

করোনাভাইরাস মহামারীর প্রাদুর্ভাবের সময় সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা দিতে অস্বীকৃতি প্রদানে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে জারি করা সেই বিতর্কিত প্রজ্ঞাপন বাতিল করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ।

আজ বৃহস্পতিবার (২৬ মার্চ) স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সেবা বিভাগের উপসচিব রোকেয়া খাতুন স্বাক্ষরিত এক প্রজ্ঞাপনে এ তথ্য জানানো হয়।

এতে বলা হয়েছে, উপযুক্ত বিষয়সূত্রে সাধারণ রোগীদের চিকিৎসা সেবা প্রদানে অস্বীকৃতি প্রদানে সংশ্লিষ্ট ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের বিষয়ে পত্রটি বিজ্ঞপ্তির নমুনাসহ এই পত্রের মাধ্যমে বাতিল করা হয়েছে।

এর আগে ২৫ মার্চ রোকেয়া খাতুন স্বাক্ষরিত এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, কোনো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ও চিকিৎসক যদি কোনো রোগীকে এবং করোনা আক্রান্ত কোনো রোগীকে প্রাথমিক চিকিৎসা প্রদানে অস্বীকৃতি জানায়, তাহলে ভুক্তভোগী স্থানীয় সেনাবাহিনীর টহল পোস্ট বা নিকটবর্তী থানায় অভিযোগ করতে পারবেন। অভিযোগ প্রমাণিত হলে অভিযুক্ত চিকিৎসক ও প্রতিষ্ঠানের রেজিস্ট্রেশন বাতিল, লাইসেন্স বাতিলসহ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

এর প্রতিবাদে একই দিনে সরকারি চিকিৎসকদের সংগঠন বিসিএস স্বাস্থ্য ক্যাডার অ্যাসোসিয়েশন এর প্রতিবাদ জানায়। এ সিদ্ধান্ত থেকে সরে না আসলে গণপদত্যাগের ঘোষণা দেয় সংগঠনটি।

চিকিৎসক সংগঠনের বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, চিকিৎসকদের সুরক্ষা পোশাক (পিপিই) প্রদানে মন্ত্রণালয়ের সুষ্পষ্ট ব্যর্থতাকে মেনে নিয়েও কোনো প্রকার ঝুঁকিভাতা ছাড়াই চিকিৎসকরা করোনার মতো মারাত্মক ছোঁয়াছে রোগীসহ সকল রোগীদের চিকিৎসা দিয়ে যাচ্ছে।

এরই মধ্যে বেশ কয়েকজন চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী এ ভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন। এ অবস্থায় মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্যকর্মীদের সেনা ও পুলিশের মাধ্যমে হেনস্থা করা এবং শাস্তিমূলক ব্যবস্থা গ্রহণের ঘোষণা অনাকাঙ্ক্ষিত এবং অপমানজনক।

এ প্রতিবাদের এক দিনের মাথায় পূর্বের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়।

আপনার মতামত দিন :