দেশের ক্রান্তিলগ্নে সেবা থেকে পিছপা হওয়া যাবে না: স্বাস্থ্যমন্ত্রী

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:০৪ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৬, ২০২০

স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, দেশে এখন করোনা সংকট চলছে। এই মুহূর্তে ডাক্তার নার্সদের প্রতি আমার অনুরোধ, ক্রান্তিলগ্নে আপনারা সেবা থেকে পিছপা হবেন না। এই সময়ে যদি আপনারা সেবা থেকে পিছপা হোন, তাহলে জাতির কাছে খারাপ বার্তা যাবে, আমরা আশা করি এমনটা হবে না।

বুধবার (২৫ মার্চ) বিকালে স্বাস্থ্য অধিদফতরে বাংলাদেশ প্রাইভেট মেডিকেল কলেজ অ্যাসোসিয়েশনের (বিপিএমসিএ) কাছ থেকে পার্সোনাল প্রটেক্টিভ ইকুইপমেন্ট (পিপিই) সামগ্রী গ্রহণ অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, আপনারা যথাযথ প্রটেকশন নিয়ে সেবা দিবেন। আমাদের পিপিই সংকট ছিলো, এখন আমাদের দেশে লক্ষ লক্ষ পিস পিপিই তৈরি হচ্ছে। আমরা ইতিমধ্যে ৩ লক্ষ পিপিই বিতরণ করেছি, এক লক্ষ পিপিই আমাদের হাতে আছে। আরো প্রায় ২ লক্ষ পিপিই অর্ডার দেয়া আছে।

প্রাইভেট হাসপাতালগুলোকে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, আমাদের যে প্রাইভেট হাসপাতালগুলো আছে, সেগুলোতে কোন রোগী সেবা নিতে গিয়ে যেন ফিরে না আসে। আমরা আশা করবো দেশের বড় বড় হাসপাতালগুলো যেন নিজস্ব আইসোলেশন ওয়ার্ড তৈরি করে। আপনারা তো দেশের অর্ধেক সেবা দিয়ে থাকেন। এই ক্রান্তিলগ্নে যদি জাতির সেবা থেকে পিছপা হওয়া যাবে না।

জাহিদ মালেক বলেন, করোনার বিরুদ্ধে সারা বিশ্বে যুদ্ধ চলছে। বাংলাদেশ আজ করোনাকে মোকাবেলা করার জন্য ঐক্যবদ্ধ। ঠিক যে ভাবে বঙ্গবন্ধুর ডাকে স্বাধীনতা যুদ্ধে দেশের জনগন ঐক্যবদ্ধ হয়েছিলো, যেভাবে বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে আমরা দেশকে স্বাধীন করেছিলাম, এখনও আমরা করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ ঘোষণা করেছি। আমরা বিজয়ী হবো।
তিনি বলেন, আমেরিকা, ইতালিসহ অনেক বড় বড় রাষ্ট্র যেখানে এই করোনাকে মোকাবেলা করতে কষ্ট পাচ্ছে, সেখানে আমরা মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর গাইড লাইন ও সকল মন্ত্রণালয়ের সহযোগিতায় করোনার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করছি। আমরা আনন্দের সাথে বলতে চাই, গত ২৪ ঘন্টায় একটি নতুন আক্রান্ত রোগীও পাইনি। তবে আমাদের একটি নতুন মৃত্যু হয়েছে, আজকের মৃত্যুসহ আমাদের মৃতের সংখ্যা দাঁড়ালো পাঁচ জনে।

স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, করোনা সংকট মোকাবেলায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রী ১০ দিনের জন্য ছুটি ঘোষণা করেছে। এ ছুটি ঘুরে বেড়ানোর জন্য নয়। পুলিশ, সেনা বাহিনীসহ অন্যান্য সংস্থা মাঠে নেমেছে। প্রতিটি ব্যক্তি ঘরে থাকবেন, নিরাপদ দূরত্বে অবস্থান করবেন এবং ভালোভাবে হাত ধুবেন।

করোনা ভাইরাসকে মারাত্বক সংক্রমক উল্লেখ করে তিনি বলেন, করোনার সংক্রমণ থেকে রক্ষা পেতে হলে আমাদেরকে নিরাপদে থাকতে হবে। এই সময়ে যে বাড়িতে থাকবে, সেই নিরাপদে থাকবে। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ বাড়ির বাহিরে বের হবেন না।

অনুষ্ঠানে পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন ও দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মো. এনামুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

উল্লেখ্য বাংলাদেশে এ ভাইরাস শনাক্ত হয় গত ৮ মার্চ। এরপর দিন দিন এ ভাইরাসে সংক্রমণের সংখ্যা বেড়েছে। সর্বশেষ হিসাবে দেশে এখন পর্যন্ত ৩৯ জন আক্রান্ত হয়েছেন, মারা গেছেন পাঁচজন।
এ ভাইরাসের সংক্রামণ ঠেকাতে এরই মধ্যে দেশের সব শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। কড়াকড়ি আরোপ করা হয়েছে সভা-সমাবেশ ও গণজমায়েতের ওপর। চারটি দেশ ও অঞ্চল ছাড়া সব দেশ থেকেই যাত্রী আসা বন্ধ করে দেয়া হয়েছে।

আপনার মতামত দিন :