স্পেনে মৃত্যুর মিছিলে ২৪ ঘণ্টায় ঝড়ল আরও ৭৬৯ প্রাণ

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৫৩ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৭, ২০২০

প্রাণঘাতী করোনায় মৃত্যুর মিছিল দীর্ঘ থেকে দীর্ঘতর হচ্ছে স্পেনে। ইউরোপের এই দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনায় প্রাণ হারিয়েছেন আরও ৭৬৯ জন। শুক্রবার স্পেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেছেন, গত ২৪ ঘণ্টায় স্পেনে করোনায় রেকর্ড আরও ৭৬৯ জন মারা গেছেন। এনিয়ে দেশটিতে করোনায় মোট প্রাণহানির সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৪ হাজার ৮৫৮ জনে।

ব্রিটিশ দৈনিক দ্য গার্ডিয়ান বলছে, করোনার প্রকোপ শুরু হওয়ার পর দেশটিতে একদিনে সর্বোচ্চ প্রাণহানির ঘটনা ঘটেছে গত ২৪ ঘণ্টায়। আগের ২৪ ঘণ্টায় সর্বোচ্চ ৭৩৮ জনের প্রাণহানির রেকর্ড ছাড়িয়ে গেছে শুক্রবারের এই প্রাণহানি।

এছাড়া দেশটিতে গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন করে আরও ৭ হাজার ৮৭১ জন করোনায় সংক্রমিত হয়েছেন; যা নিয়ে দেশটিতে মোট করোনা রোগীর সংখ্যা পৌঁছেছে ৬৪ হাজার ৫৯ জনে। বৃহস্পতিবারও এই সংখ্যা ছিল ৫৬ হাজার ১৮৮ জনে।

ইউরোপের দেশগুলোর মধ্যে করোনার ভয়াবহ প্রকোপ শুরু হয়েছে ইতালি। দেশটির স্বাস্থ্যখাতের কর্মীরা করোনা সংক্রমিতদের চিকিৎসাসেবা দিতে হিমশিম খাচ্ছেন। করোনায় প্রাণহানিতে চীনকে ছাড়িয়ে গেছে ইতালি এবং স্পেন। ইতালিতে এখন পর্যন্ত করোনায় মারা গেছেন ৮ হাজার ২১৫ এবং আক্রান্ত হয়েছেন ৮০ হাজার ৫৮৯ জন।

বৃহস্পতিবার স্পেনে লকডাউনের মেয়াদ বাড়ানোর ঘোষণা দেয়া হয়েছে। দেশটির সরকার বলেছে, করোনাভাইরাসের বিস্তার ও প্রাণহানি ঠেকাতে মেডিক্যাল সরঞ্জামের সরবরাহ দিতে গিয়ে প্রকৃত যুদ্ধের মুখোমুখি হয়েছে। করোনার রোগীদের জন্য ইতোমধ্যে চীন থেকে বিভিন্ন ধরনের চিকিৎসা সামগ্রী সংগ্রহ করেছে দেশটি।

তবে চীন থেকে করোনা চিকিৎসা সামগ্রী বেশি দামে ক্রয় এবং প্রতারণার শিকার হতে হয়েছে বলেও অভিযোগ করেছেন স্পেনের স্বাস্থ্য কর্মকর্তারা ।

গত বছরের ডিসেম্বরে চীনের উহানে করোনাভাইরাসের উৎপত্তি হলেও এখন বিশ্বের ১৯৯টি দেশ ও অঞ্চলে ছড়িয়ে পড়েছে প্রাণঘাতী এই ভাইরাস। সংক্রমণ এবং প্রাণহানিতে চীনকেও ছাড়িয়ে ইতালি এবং স্পেন।

চীনে এই ভাইরাসে ৮১ হাজার ৩৪০ জন আক্রান্ত হলেও যুক্তরাষ্ট্রে সংক্রমণের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৮৫ হাজার ৬১২ জনে। এছাড়া দেশটিতে মারা গেছেন এক হাজার ৩০১ জন। চীনে মারা গেছেন ৩ হাজার ২৯২ জন। ইতালিতে মারা গেছেন ৮ হাজার ২১৫ জন।

বিশ্বজুড়ে করোনায় আক্রান্তের সংখ্যা এখন ৫ লাখ ৪৯ হাজার ৭০ জনে পৌঁছেছে। এছাড়া মারা গেছেন ২৪ হাজার ৮৬২ জন। তবে বিশ্বজুড়ে করোনার চিকিৎসা শেষে সুস্থ হয়ে বাসায় ফিরেছেন ১ লাখ ২৮ হাজার ৬২ ০জন।

আপনার মতামত দিন :