বিশ্ব অর্থনীতির মন্দা ঠেকাতে জি-২০’র ৫ লাখ কোটি বরাদ্দ

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৭:১৭ অপরাহ্ণ, মার্চ ২৭, ২০২০

করোনাভাইরাসের ধাক্কায় ক্ষতিগ্রস্ত বিশ্ব অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে আর্থিক রসদ জোগানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে জি-২০ জোট। বিশ্ব অর্থনীতির গতি ফেরাতে জোটভূক্ত দেশগুলো সম্মিলিতভাবে ৫ লাখ কোটি ডলার বরাদ্দের কথা জানিয়েছে। খবর ব্রিটিশ বার্তা সংস্থা রয়টার্সের।

করোনা মোকাবিলার এই প্রয়াস সার্থক করতে জোটভূক্ত দেশগুলোকে নিজেদের মধ্যে সমন্বয় গড়ে তোলার আহ্বান জানিয়েছে সৌদি আরব। জি-২০ গোষ্ঠীর নেতারা একটি ভিডিও কনফারেন্সে বৈঠক করে করোনা সংকট মোকাবিলায় এমন উদ্যোগ নিয়েছেন।

সম্মেলনের পর এক বিবৃতিতে জি-২০ জানিয়েছে, ‘বিশ্ব অর্থনীতিতে আমরা ৫ লাখ কোটি ডলার বরাদ্দ করছি। এই মহামারির ফলে সামাজিক, অর্থনৈতিক এবং রাজস্ব ক্ষেত্রে যে ধাক্কা লেগেছে, তা কাটিয়ে উঠতে রাজস্ব নীতি, আর্থিক ব্যবস্থা ও নিশ্চিত পরিকল্পনার অংশ হিসেবেই এই পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে।’

G-20

বিপুল পরিমাণ এই অর্থ বিশ্ব অর্থনীতিতে বরাদ্দ করা ছাড়াও এই পরিকল্পনা বাস্তবায়নে আন্তর্জাতিক মুদ্রা তহবিলসহ (আইএমএফ) বিভিন্ন দেশের ব্যাংক, বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) মতো সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় সাধনের সিদ্ধান্তও নেওয়া হয়েছে—যেন উন্নয়নশীল দেশগুলোতেও এই আর্থিক প্যাকেজ কাজে লাগানো যায়।

আর্থিক প্রণোদনা ছাড়াও সংকট মোকাবিলায় বিশ্বকে একযোগে লড়াইয়ের আহ্বান জানিয়েছে জোটটির অন্যতম সদস্য দেশ চীন। করোনা ভাইরাসের কারণে বিশ্ব অর্থনীতিতে মন্দার যে শঙ্কা তৈরি হয়েছে তা মোকাবিলায় বাণিজ্য শুল্ক কমানোর প্রস্তাব করেছেন দেশটির প্রেসিডেন্ট শি জিনপিং।

এছাড়া বাণিজ্যে সব ধরনের বাধা অপসারণের প্রস্তাব করে ভিডিও কনফারেন্সে তিনি বলেন, ‘এটা এমন এক ভাইরাস যা কোনো দেশের সীমান্ত মানে না। বিশ্ব যে ভাইরাসের কবলে পড়েছে তা আমাদের সবরাই শত্রু। তাই আমাদের সবাইকে বিশ্বজুড়ে নিয়ন্ত্রণ ও চিকিৎসার শক্তিশালী নেটওয়ার্ক গড়ে তুলতে হবে।’

করোনার কারণে ২০২০ সালের বিশ্ব অর্থনীতি এক যুগ আগের অর্থাৎ ২০০৮ সালের মন্দার চেয়েও বড় ও ভয়াবহ মন্দায় পড়তে পারে বলে এর আগে আশঙ্কার কথা জানা বিশ্ব বাণিজ্য সংস্থার (ডব্লিউটিও) এবং অর্থনীতিবিদরা। সংস্থাটির মহাপরিচালক (ডিজি) রবার্তো অ্যাজেভেদো ২৫ মার্চ এমন শঙ্কার কথা জানান।

বিশ্বের ১৯টি প্রধান অর্থনীতির দেশ ও সেই সঙ্গে ইইউসহ জি-২০’র যাত্রা ২০০৯ সালে। দেশগুলো হচ্ছে আর্জেন্টিনা, অস্ট্রেলিয়া, ব্রাজিল, কানাডা, চীন, ফ্রান্স, জার্মানি, ভারত, ইন্দোনেশিয়া, ইতালি, জাপান, মেক্সিকো, কোরিয়া প্রজাতন্ত্র, দক্ষিণ আফ্রিকা, রাশিয়া, সৌদি আরব, তুরস্ক, যুক্তরাজ্য এবং যুক্তরাষ্ট্র।

আপনার মতামত দিন :