বিএমটিএ’র চাপে প্রেস ব্রিফিংয়ে টেকনিশিয়ান থেকে টেকনোলজিস্ট পদবী সংশোধন করতে বাধ্য হয়েছে আইইডিসিআর

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৯:১৬ অপরাহ্ণ, মার্চ ৩১, ২০২০

বর্তমানে মহামারি করোনা নিয়ে আমরা সকলেই উদ্বিগ্ন, করোনা ভাইরাস অন্যান্য রোগজীবাণুর থেকে অনেক বেশি সংক্রমিত হয়, তাই দ্রুত ভাইরাসটি ছড়িয়ে পড়ছে। করোনা ভাইরাসটি অনেক আগে আবিষ্কার হয়েছে, তবে এর আগে কখনো এভাবে ছড়ায়নি। ফলে ভাইরাসটির বিরুদ্ধে কোন ভ্যাকসিন তৈরির জন্য কোন শক্ত পদক্ষেপ গ্রহণ করা হয়নি।পাশাপাশি ভাইরাসটিকে শনাক্ত করার জন্য RT-PCR ছাড়া বিকল্প ধরনের পদ্ধতি উদ্ভাবন হয়নি।

তবে, ভাইরাসটি শনাক্ত করার জন্য বাজারে বিভিন্নধরনের ICT (Immunochromatographic test) ডিভাইস বাজারে এসেছে। ভাইরাসটি অনেক বেশি সংক্রমক হওয়ার পরীক্ষানিরীক্ষা জন্য ভাল মানের বায়োসেফটি ল্যাবের প্রয়োজন। দেশে বায়োসেফটি ল্যাব বা ল্যাবে সেফটি ক্যাবিনেটের সংখ্যা খুবই কম তাই সরকার সব ধরনের ল্যাবে পরীক্ষানিরীক্ষার জন্য অনুমোদন দিচ্ছে না।

দেশের কয়েকটি ল্যাবকে এই ভাইরাস শনাক্ত করার জন্য উপযুক্ত করে তুলা হয়েছে আর সেখানেই এই পরীক্ষানিরীক্ষা করা হচ্ছে। RT-PCR মেশিনে টেস্ট অত্যন্ত ব্যয়বহুল ও সময়সাপেক্ষ একজনের টেস্ট করাতে কয়েকঘন্টা থেকে একদিন পর্যন্ত লাগতে পারে।তাই একটা PCR মেশিনে ৫-৭ জনের বেশি টেস্ট করানো সম্ভব হবে না।

এতোক্ষণ যে পরীক্ষানিরীক্ষার কথাগুলো বললাম তার সম্পূর্ণই করে থাকে একজন মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট। একজন করোনা আক্রান্ত রোগীর থেকে স্যাম্পল কালেকশন থেকে শুরু করে পরীক্ষানিরীক্ষা, রিপোর্ট প্রদান পর্যন্ত সকল কাজ মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টরাই করে।

প্রায় ১৯৯০ এর আগে মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের সকলে টেকনিশিয়ান বলেই চিনতো, পরবর্তীতে মেডিক্যাল টেকনোলজি শিক্ষার সিলেবাস সম্প্রসারণ /কোর্সের সময়কাল বর্ধিত করণ ও উন্নয়ন বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে দেশের স্বাস্থ্য ব্যবস্থাকে একধাপ এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য টেকনিশিয়ান থেকে মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট উপাধি (Designation) দেওয়া হয়। যা পরবর্তীতে গ্রেজেট আকারে প্রকাশ হয়। কিন্তু চরম বাস্তবতা এটাই যে বর্তমান প্রজন্ম মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট বলে সম্বোধন করলেও ৯০ দশকের আগের লোক কোনভাবেই টেকনোলজিস্ট উচ্চারণ করতে চায় না।

আমাদের দেশের স্বাস্থ্য বিভাগ খুব ভাল করেই জানে মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের গুরুত্ব, কিন্তু তারা সেটা ভুলক্রমেও স্বীকার করতে চায় না। ফলে জানা সত্ত্বেও বার বার প্রেস ব্রিফিংয়ে মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট এর পরিবর্তে টেকনিশিয়ান বলে সম্বোধন করছে। যেটা দেশের সকল মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের জন্য বেদনাদায়ক সে যে সংগঠন বা মতাদর্শেরই হোক না কেন এটা মানতে পারে না।

যার প্রতিবাদস্বরূপ বিভিন্ন শ্রেণির মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টরা সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম, বিভিন্ন পত্রিকার রিপোর্টার মাধ্যমে প্রতিবাদের ঝড় তুলে। পাশাপাশি মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের মাদার সংগঠন বাংলাদেশ মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট এসোসিয়েশন ও পেশাজীবি সংগঠন বঙ্গবন্ধু মেডিক্যাল টেকনোলজিস্ট পরিষদ গত ২৮ তারিখের প্রেস ব্রিফিংয়ে বিরুদ্ধে টেকনিশিয়ান থেকে টেকনোলজিস্ট এ সংশোধন করার জন্য ৭২ ঘন্টার আলটিমেটাম ঘোষণা করে যার পরিপেক্ষিতে ২৪ ঘন্টার মধ্যে প্রেস ব্রিফিং সংশোধন করতে বাধ্য হয়।

সকল টেকনোলজিস্টরা জানান, এটা মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের একটি অর্জন বলে মনে করি। আমরা যে সংগঠন বা মতাদর্শেরই হয়না কেন সকলের মূখ্য উদ্দেশ্য হতে হবে মেডিক্যাল টেকনোলজিস্টদের উন্নতি। সকল সংগঠন যদি লক্ষনীয় কাজ করে তাহলে মেডিক্যাল টেকনোলজি পেশা বাংলাদেশের মানুষের কাছে অনেক সম্মানের পেশা বলে পরিচিত হবে এবং সকল সমস্যা সমাধান হবে বলে বিশ্বাস করি।

আপনার মতামত দিন :