নতুন গবেষণা: করোনাভাইরাস মাস্কের ওপর থাকতে পারে সাতদিন

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ১:৩৮ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৬, ২০২০

করোনাভাইরাস আতঙ্কে ভুগছে সারাবিশ্ব। এর উৎস কী, প্রাথমিক লক্ষণ কেমন বা ওষুধ-প্রতিষেধক কবে আসবে সেসব এখনও অজানা। এর মধ্যেও আশা দেখাচ্ছেন গবেষকরা। তাদের প্রাণান্ত চেষ্টায় উঠে আসছে নতুন নতুন সব তথ্য। সম্প্রতি ইউনিভার্সিটি অব হংকংয়ের (এইচকেইউ) একদল গবেষক জানিয়েছেন, মাস্ক, কাপড়, কাগজ, টাকা- যেকোনও কিছুর ওপরই করোনাভাইরাস কয়েকদিন পর্যন্ত টিকে থাকতে পারে।

গত বৃহস্পতিবার তাদের এ গবেষণা প্রতিবেদন প্রকাশিত হয়েছে দ্য ল্যানসেট মেডিকেল জার্নালে। এ গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়েছেন এইচকেইউয়ের পাবলিক হেলথ ল্যাবরেটরি সায়েন্সেস ডিভিশনের প্রধান লিও পুন লিট-মান এবং ক্লিনিক্যাল অ্যান্ড পাবলিক হেলথ ভাইরোলজিস্ট মালিক পেরিস। তারা স্বাভাবিক তাপমাত্রায় বিভিন্ন বস্তুর ওপর করোনাভাইরাস কতক্ষণ টিকে থাকে তা নিয়ে পরীক্ষা করেন।

লিও বলেন, করোনাভাইরাস অনুকূল পরিবেশে অত্যন্ত স্থিতিশীল, তবে প্রতিকূল পরিবেশেও টিকে থাকতে পারে।

গবেষণায় দেখা যায়, প্রিন্টিং ও টিস্যু পেপারের ওপর করোনাভাইরাস তিন ঘণ্টারও কম সময় টিকে থাকে। কাঠ এবং কাপড়ে, বিশেষ করে সুতি ল্যাবরেটরি জ্যাকেট থেকে দুইদিনের মধ্যেই ভাইরাসটি উধাও হয়ে যায়।

কাচ ও টাকার ওপর চারদিন পর্যন্ত করোনাভাইরাস থাকতে দেখা গেছে। স্টেইনলেস স্টিল ও প্লাস্টিকের ওপর এটি টিকে থাকে চার থেকে সাতদিন।

mask-1

সবচেয়ে ভয়ঙ্কর বিষয়, সার্জিক্যাল মাস্কের উপরিভাগে এক সপ্তাহ পর্যন্ত ভয়াবহ মাত্রায় করোনার উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

এ কারণে বাইরে বের হলে অবশ্যই মাস্ক পরা এবং এর বাইরের অংশ স্পর্শ না করার পরামর্শ দিয়েছেন গবেষকরা। তা না হলে হাত দূষিত হতে পারে এবং সেই হাত মুখে দিলে ভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ার প্রবল সম্ভবনা রয়েছে।

তবে আশার কথা, সবকিছুতেই সময়ের সঙ্গে সঙ্গে করোনাভাইরাস নিশ্চিহ্ন হয়ে যেতে দেখা গেছে। আর এটি মারতে ব্লিচিং পাউডারের মতো সাধারণ জীবাণুনাশকও কার্যকর বলে প্রমাণ পেয়েছেন গবেষকরা।

গত মাসে সায়েন্টিফিক জার্নাল ন্যাচারে প্রকাশিত মার্কিন গবেষকদের একটি প্রতিবেদনেও করোনাভাইরাসের আয়ু কয়েকদিন পর্যন্ত বলে জানানো হয়েছিল। তারা দেখেছেন, প্লাস্টিক-স্টিলের ওপর করোনাভাইরাস তিনদিন পর্যন্ত থাকলেও তামার ওপর টিকছে মাত্র চার ঘণ্টা, আর কার্ডবোর্ডের ওপর থাকছে ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত।

এদিকে, নতুন গবেষণার পর কী ধরনের সতর্কতা অবলম্বন করলে করোনার সংক্রমণ ঘটবে না সেটাও জানিয়েছেন এইচকেইউয়ের গবেষকরা।

লিও পুনের মতে, এক্ষেত্রে নিয়মিত হাত ধোয়া, মুখে হাত দিয়ে স্পর্শ না করা ও পরিচ্ছন্নতা অবলম্বনই সেরা উপায়। আর বাজার-সদাই করার পর ব্যাগগুলো অন্তত একদিন পর ধরা উচিত বলেও মনে করেন এ বিজ্ঞানী।

সূত্র: সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট

আপনার মতামত দিন :