নতুন তথ্য : যুক্তরাষ্ট্রে এক বছর আগে করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন তরুণ

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:০৫ অপরাহ্ণ, এপ্রিল ৯, ২০২০

চীনের একটি সুপার কম্পিউটারের বিশ্লেষণ করা তথ্য থেকে জানতে গেছে গত গ্রীষ্মকালে যুক্তরাষ্ট্রের একজন তরুণ ধুমপায়ী (ভ্যাপার) রহস্যজনক নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হয়ে হাসপাতালে ভর্তি ছিলেন। তার দেহে যে উপসর্গ ছিল তা বিশ্লেষণ করে তরুণ করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ছিলেন বলে দাবি করা হচ্ছে।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্টের প্রতিবেদন অনুযায়ী সুপারকম্পিউটার নাম দ্য তিনহে-১। সেটি ওই রোগীর ক্যাট ইমেজ বিশ্লেষণ করে জানাচ্ছে, ওই তরুণ কোভিড-১৯ আক্রান্ত ছিলেন তার সম্ভাবনা সর্বোচ্চ। যুক্তরাষ্ট্রের নর্থ ক্যারোলিনার ওই রোগী জুলাই থেকে আগস্টে মারাত্মক অসুস্থ ছিলেন।

চীনের তিয়ানজিয়ানে দেশটির ন্যাশনাল সুপারকম্পিউটার সেন্টারে কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা সম্পন্ন ওই সুপার কম্পিউরটার রাখা হয়েছে। তাতে জানা গেছে, তরুণের দুটি ফুসফুসেই নিচের অংশে সাদা দাগ দেখা গেছে। প্রাদুর্ভাবের প্রথম পর্যায়ে এটি ছিল করোনাভাইরাসের একটি উপসর্গ। নিউমোনিয়ায় এমন উপসর্গ বিরল।

কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তার মাধ্যমে ওই তরুণের উপসর্গ বিশ্লেষণ করে একটি প্রতিবেদন তৈরি করেছে তিনহে-১। তাতে বলা হচ্ছে, ‘ছবিতে দেখা যাচ্ছে, কোভিড-১৯ রোগের উপসর্গ দেখা গেছে এবং মহামারি সংক্রান্ত তথ্য এবং অন্যান্য ক্লিনিকাল বৈশিষ্ট্য নিয়ে রোগ নির্ণয়ের সুপারিশ করা হয়।’

যুক্তরাষ্ট্রের রোগ নিয়ন্ত্রণ ও প্রতিরোধ কেন্দ্রের (সিডিসি) ওয়েবসাইটে দেওয়া তথ্য অনুযায়ী, নর্থ ক্যারোলিনার রালেইগের নামক স্থানে অবস্থিত ওয়েকমেড নামের ওই হাসপাতালে একই সময় ফুসফুসের সমস্যা নিয়ে পাঁচ রোগী ভর্তি হন। তাদের মধ্যে একজন ছিলেন ওই তরুণ।

তাদের সবার বয়স ১৮ থেকে ৩৫ বছরের মধ্যে। তারা সবাই একই উপসর্গ নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি হন। এরমধ্যে রয়েছে শ্বাসকষ্ট, বমি, গা-গোলানো ভাব, পাকস্থলিতে অস্বস্তি এবং জ্বর ছিল। যা করোনার উপসর্গ। ইনফ্লুয়েঞ্জাসহ নানা রোগের পরীক্ষা করা হলে তাদের শরীরে সেসব রোগের অস্বিত্ব পাওয়া যায়নি।

সিডিসির সাপ্তাহিক এক প্রতিবেদনে বলা হচ্ছে, ‘ওই পাঁচ রোগীর সবাইকে হাইপোক্সেমিক শ্বাস-প্রশ্বাস জনিত সমস্যার কারণে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছিল। তীব্র শ্বাসকষ্টের কারণে তিনজনকে নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্রে (আইসিইউ) রাখার প্রয়োজন পরে। যার মধ্যে একজন ভেন্টিলেটর দিয়ে শ্বাস নেন।’

আপনার মতামত দিন :