কোভিড-১৯ চিকিৎসায় আইভারমেকটিন+ডক্সিসাইক্লিন এবং একজন অধ্যাপক ডা. তারেক আলম

প্রকাশিত: ১২:০৩ অপরাহ্ণ, মে ১৮, ২০২০

লেখকঃ অধ্যাপক ডাঃ দিদার হুসাইন

প্রথমেই অভিনন্দন ও শুভকামনা জানাচ্ছি অধ্যাপক মোহাম্মদ তারেক আলম কে তার এই সময়োপযোগী ও সাহসী পদক্ষেপের জন্য কভিড-১৯ চিকিৎসায় আইভারমেকটিন এর কার্যকারিতা বিষয়ে তার অভিজ্ঞতাকে বাংলাদেশের জনগণের সম্মুখে তুলে ধরার জন্য। যদিও বিভিন্ন প্রিন্ট মিডিয়া প্রথমে একটু বাড়িয়ে এটাকে গবেষণালব্ধ সাফল্য বলে প্রচার করেছিল।
বিভিন্ন ইলেকট্রনিক মিডিয়াতে ও তার এই অভিজ্ঞতা কে কভিড-১৯ চিকিৎসায় গবেষণার সাফল্য হিসেবে প্রচার করেছিল যদিও অধ্যাপক তারেক আলম ইহাকে গবেষণা বলে মনে করেননি বরং প্রয়োজনের তাগিদে করা একটি ক্লিনিক্যাল এক্সপেরিয়েন্স হিসেবেই বর্ণনা করেছেন।
দেশে ও বিদেশে অবস্থানরত বিভিন্ন এপিদেমিওলজিস্ট ও গবেষকগণ তার এই অভিজ্ঞতাকে যথাযথ ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালের পূর্বে ই ফলাও করে প্রচার করার জন্য সমালোচনা করেছেন।
বাংলাদেশ করোনা ভাইরাস আক্রান্ত প্রথম ব্যক্তির সন্ধান দেওয়া হয় ৮ই মার্চ। আজ ১৭ ই মে দুই মাসেরও অধিক সময় অতিবাহিত হওয়ার পরও দেশে এত বিজ্ঞ ক্লিনিশিয়ান ও এপিদেমিওলজিস্ট থাকার পরও এখনো পর্যন্ত কোভিড-১৯ চিকিৎসায় নতুন ঔষধ নিয়ে কোন ধরনের বৈজ্ঞানিক গবেষণা হয়েছে বলে আমার জানা নেই বা পত্র-পত্রিকায় প্রকাশিত হয়নি।
নিম্নে কতগুলো লিংক দেওয়া হয়েছে যা বিভিন্ন দেশে কভিড-১৯ চিকিৎসায় আইভারমেক্টিন এর কার্যকারিতা নিয়ে ক্লিনিক্যাল ট্রায়ালে চলমান রয়েছে।
১ নম্বর লিঙ্ক এ
Dr. Jean-Jacques Rajter, a Broward Health Medical Center physician, and his pulmonologist wife স্থানীয় স্বাস্থ্য বিভাগের অনুমতি নিয়েই কভিড-১৯ চিকিৎসায় আইভারমেকটিন এর কার্যকারিতা নিয়ে গবেষণা করছেন এবং প্রাথমিক সাফল্য পেয়েছেন বলে দাবি করেন। অচিরেই তার গবেষণা লব্ধ ফলাফল আন্তর্জাতিক জার্নালে প্রকাশিত হতে যাচ্ছে।
যুক্তরাষ্ট্রের জন হপকিনস বিশ্ববিদ্যালয়, যুক্তরাজ্য, স্পেন সহ বিশ্বের অন্যান্য দেশে একইভাবে কোভিড-১৯ এর চিকিৎসা আইভারমেক্টিন এর কার্যকারিতা নিয়ে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হয়েছে, এমনকি আইভারমেকটিন এর জন্মস্থান জাপানের
kitasato-university তে ও ক্লিনিক্যাল ট্রিয়াল শুরু হতে যাচ্ছে।
বাংলাদেশেও কভিড-১৯ চিকিৎসায় আইভারমেক্টিন এর কার্যকারিতা নিয়ে এই মুহূর্তেই গবেষণা শুরু হওয়া অর্থাৎ ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হওয়া উচিত। এক্ষেত্রে অধ্যাপক তারেক আলমের অভিজ্ঞতাকে সামনে রেখে দেশে এবং বিদেশে অবস্থানরত বাংলাদেশী গবেষকদের সমন্বয়ে একটি রিসার্চ প্রটোকল তৈরি করে ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু করা যেতে পারে। এ ব্যাপারে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও আইইডিসিআর এবং বাংলাদেশ মেডিকেল রিসার্চ কাউন্সিল যথাযথ ভূমিকা রাখতে পারেন।

তথ্যসূত্র:

www.trialsitenews.com/broward-county-doctor-using-ivermectin-off-label-combo-on-covid-19-patients-it-is-working-secures-county-health-protocol-approval

ডা. রিফাত আল মাজিদ

dr.rifatdcmc@gmail.com

 

আপনার মতামত দিন :