সরকারি চাকরি সহ প্রাইভেট প্র‍্যাকটিস এর অনুমতি থেকে বঞ্চিত ডিপ্লোমা ডেন্টাল টেকনোলজিস্টরা

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪:২৩ অপরাহ্ণ, মে ১৮, ২০২০

স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন বাংলাদেশ রাষ্ট্রীয় চিকিৎসা অনুষদের অধীনে ৪ বছরের ডেন্টাল ডিপ্লোমা কোর্স শেষ করেন ডিপ্লোমা ডেন্টিষ্টরা। ডেন্টাল ডিপ্লোমা সনদধারীগণ প্রতিহিংসার শিকার হচ্ছেন বারবার। এই শিক্ষার সার্টিফিকেট পেয়েও সামান্য মর্যাদাটুকু পান না তাঁরা। চিকিৎসা বিজ্ঞানে বিভিন্ন বিষয়ে ডিপ্লোমা কোর্স রয়েছে—হোমিওপ্যাথি, ইউনানি ও আয়ুর্বেদিক, অ্যালোপ্যাথিক মেডিক্যাল অ্যাসিসটেন্ট, ডেন্টাল টেকনোলজি।

প্রথম তিনটির ডিপ্লোমা সনদধারীগণ দেশের প্রচলিত আইনে প্রাকটিস করার রেজিস্ট্রেশন পেলেও ডেন্টাল ডিপ্লোমা সনদধারীগণ এই অধিকার থেকে বঞ্চিত। শুধু কিছু সংখ্যক বিডিএস ডাক্তারের কারণে। সারা দেশে সরকারি-বেসরকারি মিলিয়ে ১০০টির বেশি ইনস্টিটিউট অব হেলথ টেকনোলজি থেকে প্রতি বছর প্রায় সাড়ে তিন হাজার ডিপ্লোমা ডেন্টিষ্ট বের হচ্ছেন।

নেই সরকারি চাকরির পর্যাপ্ত সুযোগ নেই প্রাইভেট প্রাকটিসের চূড়ান্ত অনুমতি। এতে ডিপ্লোমা ডেন্টিষ্টরা হতাশ। মহামান্য উচ্চ আদালত কোর্স কারিকুলাম, জব ডেসক্রিপশন, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়, স্বাস্থ্য অধিদপ্তর ও আইন মন্ত্রণালয়ের গুরুত্বপূর্ণ মতামতের ভিত্তিতে ১০টি কাজের সার্কেল নির্ধারণ করে প্রাইভেট প্রাকটিসের অনুমতি প্রদান করে বিএমডিসিকে তা দ্রুত বাস্তবায়নের নির্দেশ দেন।

কিন্তু বিএমডিসি মহামান্য উচ্চ আদালতের রায় বাস্তবায়ন না করে কালক্ষেপণ করছে। বাংলাদেশ মেডিক্যাল অ্যান্ড ডেন্টাল কাউন্সিল আইন ২০১০-এর ধারা ২-এর (৪) ও (১৫), ধারা ৫-এর (১) এবং ধারা ১৪-এর (১) পাওয়ার অধিকার রাখেন ডিপ্লোমা ডেন্টিষ্টরা।
তাই ডিপ্লোমা ডেন্টিষ্টদের প্রাইভেট প্রাকটিসের অনুমতি প্রদানের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি।

ডেন্টিষ্ট আবদুর রহমান তুষার
সাংগঠনিক সম্পাদক
বাংলাদেশ ডেন্টাল পরিষদ
০১৭১২-৭২৪১৭৫

আপনার মতামত দিন :