হজে প্রতি ৫০ জনে একজন ‘স্বাস্থ্য নেতা’

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৩:৩১ অপরাহ্ণ, জুলাই ২৯, ২০২০

প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মহামারিতে সীমিত পরিসরে হজের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হচ্ছে আজ থেকে। এতে সৌদি আরবে ছিলেন এমন এক হাজার সৌভাগ্যবান মুসলমান এবার হজের সুযোগ পেয়েছেন। তবে তাঁদের প্রতি ৫০ জনের সাথে ‘স্বাস্থ্য নেতা’ হিসেবে একজন করে থাকবেন সৌদি চিকিৎসক ও স্বাস্থ্যকর্মী।

আজ বুধবার (২৯ জুলাই) দেশটির সংবাদমাধ্যম সৌদি গেজেট এ খবর জানিয়েছে।

খবরে বলা হয়েছে, এবারের হজে অভূতপূর্ব এক পদক্ষেপ নিয়েছে সৌদি আরবের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। করোনা মহামারিজনিত পরিস্থিতিতে এবারের ব্যতিক্রমী হজে প্রতি ৫০ জন হজযাত্রীর জন্য একজন করে ‘স্বাস্থ্য নেতা’ নিয়োগ করেছে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এই স্বাস্থ্য নেতা তাঁর দলের হজযাত্রীরা স্বাস্থ্য-সংক্রান্ত বিষয়গুলো যথাযথভাবে মানছেন কি না, তা নিশ্চিত করবেন।

সৌদি প্রেস এজেন্সি এক বিবৃতিতে বলা হয়েছে, হজযাত্রীদের নেতৃত্ব থাকা এসব স্বাস্থ্য নেতা একেকজন স্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ। তাঁরা হজযাত্রীদের জন্য নির্ধারিত বাসে থাকা অবস্থায়ই পূর্বসতর্কতামূলক একটি ফেম পূরণ করবেন এবং হজযাত্রীদের শারীরিক অবস্থা পর্যবেক্ষণ করবেন। কোনো হজযাত্রীর শারীরিক অবস্থা সন্দেহজনক হলে সঙ্গে সঙ্গে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সে বিষয়ে অবহিত করবেন।

বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, পবিত্র কাবা ও পবিত্র কালো পাথর (হাজরে আসওয়াদ) জীবাণুনাশক দিয়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন করে দেওয়া হয়েছে সুগন্ধি। হজে অংশগ্রহণকারী সবার করোনা পরীক্ষা সম্পন্ন করে ২০ দিন আগেই মক্কার হোটেলগুলোতে কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছিল। তাঁদের হাতে বিশেষ যন্ত্র স্থাপন করা হয়েছিল, যাতে তাঁদের গতিবিধির ওপর নজর রাখা যায়। গত দুদিন আবারও তাঁদের পরীক্ষা করে নিশ্চিত করা হয়, কেউ কোভিড-১৯-এ আক্রান্ত নন।

সৌদি আরবের হজ ও ওমরাহ মন্ত্রণালয়ের প্রধান পরিকল্পনা কর্মকর্তা ড. আমর আল-মাদ্দাহ বলেন, ‘আলহামদুলিল্লাহ, এমন ব্যবস্থা নিয়েছি, যাতে কেউ হজে এসে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত না হন। যাতে কারো অনাকাঙ্ক্ষিত মৃত্যু না হয়।’

প্রসঙ্গত, গত বছরও হজ পালন করেছিলেন ২০ লাখের বেশি মুসল্লি। একসঙ্গে ‘আল্লাহুম্মা লাব্বায়েক’ ধ্বনির মাধ্যমে নিজেদের উপস্থিতি জানিয়েছিলেন তাঁরা। মহামারি করোনাভাইরাস সে দৃশ্যপট পুরোপুরি পাল্টে দিয়েছে এবার। লাখ লাখ নয়, এবার হজ পালন করছেন সৌভাগ্যবান এক হাজার মুসলমান।

আপনার মতামত দিন :