জনগনের জন্য উন্মুক্ত হলো রাশিয়ার করোনা টিকা

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৪:৫১ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ৯, ২০২০

বিশ্বে করোনাভাইরাসের প্রথম টিকা স্পুটনিক-ভি এর প্রথম ব্যাচ দেশের নাগরিকদের জন্য উন্মুক্ত করেছে রাশিয়া। এর মাধ্যমে গামেলিয়া ন্যাশনাল রিসার্চ সেন্টার ও রাশিয়ান ডিরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট ফান্ডের তৈরি টিকাটি আঞ্চলিক পর্যায়ে সরবরাহ শুরু হচ্ছে।

আজ মঙ্গলবার (৮ সেপ্টেম্বর) দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এক বিবৃতিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে। বার্তা সংস্থা ইন্দো-এশিয়ান নিউজ সার্ভিস (আইএএনএস) এ তথ্য নিশ্চিত করেছে।

বিবৃতিতে জানানো হয়, করোনা প্রতিরোধে গাম-কোভিড-ভ্যাক বা স্পুটনিক-৫ নামের প্রথম ব্যাচের টিকাটি প্রয়োজনীয় সব গুণগত পরীক্ষা অনুমোদন করা হয়েছে। দেশে রোজদ্রাভনাদজোর পরীক্ষাগারে পরীক্ষা করে এই টিকা জনগণের মধ্যে প্রচারের জন্য উন্মুক্ত করা হচ্ছে। খুব শিগগিরই দেশের বিভিন্ন প্রান্তে এই টিকার প্রথম ব্যাচ পৌঁছে যাবে।

এ বিষেয়ে মস্কোর মেয়র সার্গেই সোবিয়ানিন আশা প্রকাশ করে বলেন, আগামী কয়েক মাসের মধ্যেই বেশিরভাগ শহরবাসীর করোনা টিকা গ্রহণ প্রক্রিয়া সম্পন্ন হয়ে যাবে।

এদিক বিশ্বখ্যাত চিকিৎসা বিষয় পত্রিকা ‘ল্যানসেট’-এর এক প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, স্পুটনিক-ভি আপাতত নিরাপদ বলেই মনে হচ্ছে। এতে কোনও গুরুতর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া নেই। এখনও পর্যন্ত পাওয়া ফলাফলে দেখা গেছে, এই টিকা প্রয়োগে শরীরে দীর্ঘমেয়াদী অ্যান্টিবডি তৈরি হচ্ছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়, টিকাটির প্রতিটি পরীক্ষায় ৩৮ জন সুস্থ স্বেচ্ছাসেবীর শরীরে দুই ডোজ করে টিকা ও বুস্টার দেওয়া হয়। প্রথমবার টিকা দেওয়ার তিন সপ্তাহ পর টিকার কার্যক্ষমতা বাড়ানোর বুস্টার প্রয়োগ করা হয়। পরীক্ষায় অংশ নেওয়া স্বেচ্ছাসেবকদের বয়স ছিল ১৮ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে। তাঁদের ৪২ দিন পর্যবেক্ষণে রাখা হয়। তিন সপ্তাহের মধ্যে সবার শরীরে অ্যান্টিবডি তৈরি হতে দেখা যায়।

এর আগে গত ১১ আগস্ট বিশ্বের প্রথম করোনা টিকা নথিভুক্ত করে রাশিয়া। দেশটির প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এ তথ্য জানিয়ে টিকাটি কার্যকর ও নিরাপদ বলে ঘোষণা দেন। চলতি মাসে ভারতে এই টিকার ক্লিনিক্যাল ট্রায়াল শুরু হওয়ার কথা রয়েছে। একইসঙ্গে সৌদি আরব, সংযুক্ত আরব আমিরাত, ফিলিপাইন এবং ব্রাজিলে স্পুটনিক-ভি এর ক্লিনিকাল ট্রায়াল হবে। চলতি বছর অক্টোবর বা নভেম্বরেই জানা যাবে এই ক্লিনিকাল ট্রায়ালের ফলাফল।

আপনার মতামত দিন :