সুস্বাস্থ্যের জন্য ফিজিওথেরাপি অপরিহার্য : স্বাস্থ্য সচিব

নিউজ নিউজ

ডেস্ক

প্রকাশিত: ৬:৪৩ অপরাহ্ণ, ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০২০

জনমানুষের সুস্বাস্থ্যের জন্য ফিজিওথেরাপি অপরিহার্য। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন এ চিকিৎসায় শৃঙ্খলা আনার জন্য মেডিক্যাল কাউন্সিল হলে ভালো হয়। গত রোববার আগারগাঁওয়ে এলজিইডি মিলনায়তনে বাংলাদেশ ফিজিওথেরাপি জাতীয় সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তব্যে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের স্বাস্থ্য বিভাগের সচিব মো: আসাদুল ইসলাম এসব কথা বলেন।

সম্মেলনে বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশে মার্কিন দূতাবাসের ইউএসএইড পরিচালক ডেরিক ব্রাউন, সাবেক সচিব ও তত্ত্বাবধায়ক সরকারের উপদেষ্টা মো: আব্দুল মুয়িদ চৌধুরী, কেয়ার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালের চেয়ারম্যান অধ্যাপক ডা: পারভিন ফাতেমা, বিশিষ্ট অর্থোপেডিক সার্জন অধ্যাপক ডা: মাহবুব হোসেন মেহেদি। বৈজ্ঞানিক অধিবেশনে যোগ দেন নেদারল্যান্ডস থেকে ডা: জস জাওয়ান, ভারত থেকে অধ্যাপক ডা: শবনম আগারওয়াল, কানাডা থেকে ডা: জাকির উদ্দিন।
স্বাস্থ্য সচিব বলেন, অর্থ ও জায়গা বরাদ্দ সত্ত্বেও এত বছরে ফিজিওথেরাপি কলেজ না হওয়া বেদনাদায়ক।

মহাখালীতে ফিজিওথেরাপি কলেজের বস্তি উচ্ছেদ করে দ্রুত ফিজিওথেরাপি কলেজের ভবন নির্মাণের কাজ শুরু করে কার্যক্রম শুরু করা হবে। তিনি আরো বলেন, স্বাস্থ্য খাতে ফিজিওথেরাপি এখন গুরুত্বপূর্ণ স্বীকৃত চিকিৎসাব্যবস্থা। পার্শ্বপ্রতিক্রিয়াহীন ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা ও ফিজিওথেরাপিস্টদের মূল্যায়ন করে তাদের জন্য পদ ও নিয়ন্ত্রক সংস্থা করতে হবে।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন বিপিএ’র সহসভাপতি ডা: ইয়াসমিন আরা ডলি। বিপিএ’র মহাসচিব ডা: ফরিদ উদ্দিন ফিজিওথেরাপি পেশার বর্তমান চাহিদা ও এ পেশার চিকিৎসকদের সমস্যাগুলো তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর হাত ধরে যুদ্ধাহত মুক্তিযোদ্ধাদের পুনর্বাসনের মাধ্যমে এ দেশে ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা প্রাতিষ্ঠানিকভাবে শুরু হয়। পরবর্তীকালে ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশক্রমেই পঙ্গু হাসপাতালে প্রথম ফিজিওথেরাপিতে স্নাতক ডিগ্রি প্রদান করা শুরু করে।

বিপিএ সভাপতি ডা: দলিলুর রহমান বলেন, দেশে প্রায় দুই কোটি মানুষের ফিজিওথেরাপি চিকিৎসা প্রয়োজন। এ চিকিৎসাটি আরো সুশৃঙ্খলতার সাথে জনগণের কাছে পৌঁছাতে হলে ফিজিওথেরাপি কলেজ প্রতিষ্ঠার বিকল্প নেই। বাংলাদেশে ফিজিওথেরাপি পেশার রূপকার বঙ্গবন্ধুর নামে বঙ্গবন্ধু ফিজিওথেরাপি কলেজ প্রতিষ্ঠার দাবি জানান। সম্মেলনে সারা দেশ থেকে আগত ৪০০ ফিজিওথেরাপিস্ট উপস্থিত ছিলেন।

আপনার মতামত দিন :